Sufi Faruq Ibne Abubakar (সুফি ফারুক ইবনে আবুবকর)

কুমারখালী ও খোকসায় প্রযুক্তি সম্পাদক সুফি ফারুকের পূজামণ্ডপ পরিদর্শন ২ নং ওসমানপুর ইউনিয়ন, ৪ নং সদকি ইউনিয়ন, ৬ নং চাপড়া ইউনিয়ন, ৭ নং বাগুলাট ইউনিয়ন, ৮ নং যদুবয়রা ইউনিয়ন, ৯ নং চাঁদপুর ইউনিয়ন, কুমারখালী উপজেলা, কুমারখালী-খোকসা, খোকসা উপজেলা

কুমারখালী ও খোকসায় প্রযুক্তি সম্পাদক সুফি ফারুকের পূজামণ্ডপ পরিদর্শন

‘বিশ্বাস যার যার উৎসব সবার।’

শুধু কথায় নয় দারুন এ তত্ত্বটাকে ব্যবহারিক রুপ দিতে কুষ্টিয়া জেলার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক সুফি ফারুক ইবনে আবুবকর নিজ জেলা কুষ্টিয়ার কুমারখালি ও খোকসা  উপজেলার প্রায় অধিকাংশ পুজা মণ্ডপ পরিদর্শন করছেন।

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ বুধবারে কুমারখালী উপজেলার, বাগুলাট ইউনিয়নের, শালঘরমধুয়া সার্বজনীন পূজা মন্দিরে দুর্গা পূজা উপলক্ষে সনাতন ধর্মাবলম্বী ভাই বোনদেরকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও বাংলাদেশের মুসলিমদের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও সম্প্রীতির বার্তা নিয়ে পৌঁছান কুষ্টিয়া বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কুষ্টিয়া ইউনিটের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক সুফি ফারুক

দুর্গাপূজা বা দুর্গোৎসব হল হিন্দু দেবী দুর্গার পূজাকে কেন্দ্র করে প্রচলিত একটি উৎসব। দুর্গাপূজা সমগ্র হিন্দুসমাজেই প্রচলিত। তবে বাঙালি হিন্দু সমাজে এটি অন্যতম বিশেষ ধর্মীয় ও সামাজিক উৎসব।

হিন্দু সমাজের সর্ববৃহৎ উৎসব দুর্গাপূজা পরিদর্শনকালে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক সুফি ফারুক ইবনে আবুবকর বাংলাদেশের খবর কে বলেন,’ সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব দূর্গা পুজা। এই দূর্গা পূজা শুধু সনাতন ধর্মের মানুষ পালন করেনা। বাংলাদেশের সকল ধর্মের মানুষ একসাথে মিলেমিশে আমরা এই উৎসব পালন করে থাকি।’

তিনি আরও বলেন,’কুমারখালি ও খোকসা উপজেলার  বিভিন্ন স্থানে গত দুই দিন ধরে বিভিন্ন পুজা মণ্ডপে গিয়েছি ,ঘুরে দেখেছি।সবাই অনেক সুন্দর ভাবে দুর্গোৎসব পালন করছে। আমরা যেমন নিজের ধর্ম বা বিশ্বাসের বিষয়ে সবার শ্রদ্ধা আশা করি, তেমনই অন্য বিশ্বাস বা ধর্মের বিশ্বাসীদের শ্রদ্ধা করি, তাদের ধর্মাচারের পূর্ণ স্বাধীনতা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করি।’

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে সব ধরনের বিশ্বাসীদের বাংলাদেশের মাটিতে শান্তির সাথে ও নির্ভয়ে তাদের আচার অনুষ্ঠান পালন করার স্বাধীনতা ও স্বস্তি নিশ্চিত করার দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করা হয়।

গত দুই দিনের গতকালে তিনি কুমারখালি উপজলার নদীর ওপর পাশের পান্টি,বাগুলাট,চাদপুর,যদুবয়রা ইউনিয়ন ও খোকসা উপজেলার ওসমানপুরের বিভিন্ন পূজামণ্ডপ পরিদর্শন সহ পুজা কমিটির সাথে বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেন। এছাড়া আজ বৃহস্পতিবার কুমারখালী উপজেলার বাগুলাট ইউনিয়ন, শালঘরমধুয়া সার্বজনীন পূজা মন্দির পরিদর্শন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, দেশের স্বনামধন্য ফটোগ্রাফি প্রতিষ্ঠান নিজল ক্রিয়েটিভ এর প্রধান নির্বাহী পরিচালক আবু সুফিয়ান নিলাভ সহ কুষ্টিয়া গুরুকুলের লিগ্যাল এন্ড এডমিন শামীম রানা, তানভির মেহেদি ,খাইরুল ইসলাম সহ আরও অনেকে।

 

এবার কুমারখালি উপজেলায় ৫০টি মণ্ডপে দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে।
পৌরসভা এলাকায় ১২টি এবং ১১টি ইউনিয়নের মধ্যে সবচেয়ে বেশি পান্টি ইউনিয়নে ১০টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
তবে চরসাদীপুর ইউনিয়নের কোথাও দুর্গা পূজা উদযাপিত হচ্ছে না।

কুমারখালীতে পুজা মন্ডপের তালিকা:
পৌরসভা এলাকা:
১. শ্রী শ্রী পূর্ণমাতাজীর কালিবাড়িৱ
২. তেবাড়িয়া-সেরকান্দি গৌরাঙ্গ মহাপ্রভুর আখড়া
৩. খয়েরচারা মাতৃ মন্দির
৪. কুন্ডুপাড়া দূর্গা মন্দির
৫. কুন্ডুপাড়া ভট্রাচায্যবাড়ি দূর্গা মন্দির
৬. নবগ্রহ দূর্গামন্দির
৭. এলঙ্গী শ্রী শ্রী মাধাভাঙা দূর্গামন্দির
৮. রক্ষাকালী মন্দির
৯. বাটিকামারা বিশ্বাসবাড়ি দূর্গামন্দির
১০. গোডাউনপাড়া দূর্গামন্দির
১১. পূর্ব সর্দা পাড়া দূর্গামন্দির
১২. পশ্চিম সর্দারপাড়া মা মনসা দূর্গামন্দির,

শিলাইদহ ইউনিয়নঃ
১. শিলাইদহ গোপিনাথ বিগ্রোহবাড়ি শ্রী শ্রী দূর্গামন্দির
২. শিলাইদহ কল্যাণপুর দাসপাড়া সার্বজনিন শ্রী শ্রী দূর্গামন্দির

সদকী ইউনিয়নঃ
১. নন্দীগ্রাম দূর্গামন্দির
২. মহিষাখোলা সার্বজনিন দূর্গামন্দির।

নন্দলালপুর ইউনিয়নঃ
১. সোন্দাহ নন্দীবাড়ি দূর্গামন্দির
২. নন্দলালপুর বাজার সার্বজনিন দূর্গামন্দির।

পান্টি ইউনিয়নঃ
১. অজিত বাবুরবাড়ি দূর্গামন্দির
২. নগরকয়া ঘোষবাড়ি দূর্গামন্দির
৩. রামদিয়া দূর্গামন্দির
৪. ভালুকা সার্বজনিন দূর্গামন্দির
৫. পিতম্বরবসী সার্বজনিন দূর্গামন্দির
৬. পুর্বভালুকা সার্বজনিন দূর্গামন্দির
৭. পশ্চিম ভালুকা সাজিপাড়া দূর্গামন্দির
৮. রামনগর বারোয়ারি সার্বজনিন দূর্গামন্দির
৯. রামনগর পোদ্দারবাড়ি সার্বজনিন দূর্গামন্দির
১০. কৃষ্ণপুর সার্বজনিন দূর্গামন্দির।

যদুবয়রা ইউনিয়নঃ
১. এতমামপুর ঠাকুরবাড়ি দূর্গামন্দির
২. এতমামপুর অনাথবন্ধু দাস সার্বজনিন দূর্গামন্দির
৩. বহলবাড়িয়া শ্রী শ্রী দূর্গামন্দির
৪. উত্তর কেশবপুর সার্বজনিন দূর্গামন্দির
৫. চাঁদপুর হলদারপাড়া দূর্গামন্দির
৬. চাঁদপুর হলদারপাড়া সার্বজনিন দূর্গামন্দির।

জগন্নাথপুর ইউনিয়নঃ
১. হোগলা ঘোষপাড়া বারোয়ারি দূর্গামন্দির
২. জোতপাড়া বারোয়ারি দূর্গামন্দির
৩. দয়রামপুর বারোয়ারি দূর্গামন্দির
৪. হোগলা-দরবেশপুর বারোয়ারি দূর্গামন্দির
৫. দয়রামপুর বিগ্রোহবাড়ি দূর্গামন্দির
৬. হোগলা সার্বজনিন দূর্গামন্দির

চাঁদপুর ইউনিয়নঃ
১. ধলনগর শ্রী শ্রী দূর্গামন্দির
২. মিরপুর সার্বজনিন দূর্গামন্দির,

বাগুলাট ইউনিয়নঃ
১. শালঘরমধুয়া মহাশ্মশান দূর্গামন্দির
২. বাগুলাট হলদারপাড়া সার্বজনিন দূর্গামন্দির
৩. উদয় নাতুড়িয়া সার্বজনিন দূর্গামন্দির

চাঁপড়া ইউনিয়নঃ
১. ভাঁড়রা সার্বজনিন দূর্গামন্দির
২. ধরমপাড়া দূর্গামন্দির
৩. সাঁওতা বারোয়ারি দূর্গামন্দির

কয়া ইউনিয়নঃ
১. কয়া হরিবাসর দূর্গামন্দির
২. কয়া পালপাড়া সার্বজনিন দূর্গামন্দির।

এবার কুমারখালি উপজেলা পুঁজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি নব কুমার দত্ত ও সাধারন সম্পাদক এডভোকেট জয়দেব বিশ্বাস।