Sufi Faruq Ibne Abubakar (সুফি ফারুক ইবনে আবুবকর)

পেশা পরামর্শ সভা | পেশা পরিচিতি | গবেষণা সহকারী (খণ্ডকালীন পেশা) পেশা পরিচিতি

সুফি ফারুক এর পেশা পরামর্শ সভা, পেশা পরিচিতি, গবেষণা সহকারী, কুমারখালী খোকসা, কুষ্টিয়া | Sufi Faruq's Career Counselling for Rural Youth, Research Assistant, Kumarkhali, Khoksa, Kushtia

গবেষণা ও সমীক্ষার জন্য সব সময় প্রয়োজন হয় তথ্য ও উপাত্তের, যা সংগ্রহ করতে সহযোগিতা করে থাকেন গবেষণা সহকারী। সম্মান বা স্নাতকোত্তর পর্যায়ের শিক্ষার্থী কিংবা সদ্য পাস করেছেন – এমন শিক্ষার্থীদের জন্য গবেষণা সহকারী হিসেবে কাজ করা একটা ভালো সুযোগ। জীবনবৃত্তান্তে এ ধরনের চাকরির অভিজ্ঞতা বাড়তি মাত্রা যোগ করে। লিখেছেন – শামস্ বিশ্বাস

 

কাজের সুযোগ

সারা বছরই নানা ধরনের প্রকল্প ও গবেষণা পরিচালনা করে থাকে গবেষণা প্রতিষ্ঠান ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাগুলো। এসব প্রকল্প ও গবেষণায় প্রয়োজন হয় তথ্য সংগ্রাহক বা গবেষণা সহকারীদের। প্রতিষ্ঠানগুলো সাধারণত গবেষণা সহকারী হিসেবে সদ্য স্নাতক পাস কিংবা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়োগ দিয়ে থাকে। প্রতিষ্ঠানগুলো নিয়োগের পর সাধারণত প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে। তাই গবেষণা সহকারী হিসেবে কাজ করতে চাইলে পূর্বাভিজ্ঞতার চেয়ে আগ্রহ, উৎসাহ ও একাগ্রতা জরুরি। খ-কালীন গবেষণা সহকারীর জন্য সাধারণত উদ্যমী ও মানুষের সঙ্গে সহজে মিশতে পারেÑ এমন তরুণদের নেওয়া হয়ে থাকে। এ ক্ষেত্রে ভ্রমণ করতে আগ্রহী ও দুর্গম এলাকায় গিয়ে থাকতে পারবেÑ এমন শিক্ষার্থীদের জন্য কাজের সুযোগ বেশি থাকে।

 

শিক্ষাগত যোগ্যতা
সম্মান বা স্নাতকোত্তর পর্যায়ে পড়ালেখা করছেন কিংবা সদ্য পাস করেছেন – এমন শিক্ষার্থীরা কাজ করতে পারেন। নির্দিষ্ট কোনো অভিজ্ঞতার দরকার না হলেও নৃবিজ্ঞান, সমাজবিজ্ঞান, ইংরেজি, পরিসংখ্যান, অর্থনীতি ও আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থীরা অগ্রাধিকার পান। তবে মাঠপর্যায়ে গবেষণার প্রাথমিক তথ্য সংগ্রাহক হিসেবে কাজের সুযোগ যে কোনো বিষয়ের শিক্ষার্থীর রয়েছে। সম্মান বা স্নাতকোত্তরের শিক্ষাসূচিতে গবেষণা পদ্ধতি (রিসার্চ মেথোডলজি) বিষয় আছে – এমন শিক্ষার্থীদের জন্য কাজের ভালো সুযোগ আছে।

 

যেভাবে খোঁজ পাবেন
প্রতিষ্ঠানগুলো সাধারণত তাদের নিজস্ব ওয়েবসাইটে বা চাকরিবিষয়ক ওয়েবসাইটগুলোয় গবেষণা সহকারীর জন্য বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে। খুব স্বল্প সময়ের মধ্যে প্রার্থী বাছাই ও নিয়োগ চূড়ান্ত হয়ে থাকে বলে নিয়মিত খোঁজ রাখতে হয়।

 

দায়িত্ব
গবেষণা সহকারী বা তথ্য সংগ্রহকারী হিসেবে নানারকমের কাজ করতে হয়। এর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের জরিপের কাজ, সাক্ষাৎকার গ্রহণ, গবেষণার প্রাথমিক তথ্য সংগ্রহ, গভীর সাক্ষাৎকার (ইনডেফথ ইন্টারভিউ), দলগত আলোচনা ( ফোকাস গ্রুপ ডিসকাশন) বা বিদেশি গবেষকদের সঙ্গে অনুবাদক হিসেবে কাজ করার সুযোগ আছে। এসব কাজ সাধারণত মাঠপর্যায়ে গিয়ে বেশি করতে হয়।

 

বেতন ও সুযোগ-সুবিধা
গবেষণা সহকারীর বেতন সাধারণত দৈনিক হিসেবে নির্ধারিত হয়ে থাকে। বেতনের পরিসীমা নির্ভর করে প্রতিষ্ঠান এবং কাজের ধরনের ওপর। দৈনিক বেতনের পরিমাণ ১ থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত হতে পারে। এ ছাড়া কাজের প্রয়োজনে মাঠপর্যায়ে যেতে হলে প্রতিষ্ঠান ভ্রমণ ও থাকা-খাওয়ার খরচও দিয়ে থাকে। ঢাকার ভেতরে হলে প্রতিষ্ঠানগুলো শুধু ভ্রমণ ও খাওয়ার খরচ দিয়ে থাকে। গবেষণা সহকারী হিসেবে কাজের মেয়াদ কমপক্ষে তিন দিন থেকে সর্বোচ্চ ছয় মাস পর্যন্ত হতে পারে।

 

জীবনবৃত্তান্তে অভিজ্ঞতা
গবেষণা সহকারী হিসেবে খন্ডকালীন কাজ ভবিষ্যতে জীবনবৃত্তান্তে অভিজ্ঞতা হিসেবেও মূল্যবান হতে পারে।

 

এই লেখাটি “খণ্ডকালীন পেশা গবেষণা সহকারী” এই শিরোনামে দৈনিক আমাদের সময়ের ক্যারিয়ার সময় পাতায় ২৫ অক্টোবর ২০১৭ তারিখে প্রকাশিত হয়েছে।