৯০ ভাগ মুসলমানের দেশ নিয়ে আমাদের কিসের গর্ব ??

৯০ ভাগ মুসলমানের দেশ নিয়ে গর্ব করি !!!
কিসের গর্ব?

ইসলামোসিটি গবেষণার যে ফলাফল বেরিয়েছে – সেটা দেখার পরে, আমরা নিজেদেরকে কি মুসলিম দাবী করতে পারি? দাবী করলেও কি তা নিয়ে গর্ব করতে পারি?

৯০ ভাগ মুসলমানের দেশ নিয়ে কিসের গর্ব ??এই গবেষণায় একটি দেশের মানুষ, সমাজ ও রাষ্ট্রকে মাপা হয়েছে।
মাপা হয়েছে কোরানের মানদণ্ডে।
অর্থাৎ কোরআন যে – “নৈতিক মানদণ্ড, ইসলামিক আইন, অর্থনীতি, মানবাধিকারের কথা বলেছে”, সেটা সেখানে কতটুকু প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

গবেষণার ফল কী?
কোন মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ ৪০ এর মধ্যেও নেই!
মালয়েশিয়া হয়েছে ৪৩ তম। বাংলাদেশের অবস্থান ১২০ তম।

আর নিউজিল্যান্ড হয়েছে ১ম।
অর্থাৎ সংখ্যাগরিষ্ঠ নাস্তিকের দেশ নিউজিল্যান্ড, কোরানকে সবচেয়ে বেশি প্রতিষ্ঠিত করতে পেরেছে।

ইহুদি নাসারার ষড়যন্ত্র বলে চিল্লানি দেবার আগে জানিয়ে রাখি।
ইসলামোসিটি গবেষণাটা কিন্তু ইহুদি-নাসরা রা করেনি। মুসলিম স্কলাররাই করেছে।

ভেবে দেখ তারুণ্য!
আমরা এমন মুসলমান হিসেবে গর্বিত, যাদের সাথে কোরানের জীবন-ব্যবস্থার কোন সম্পর্ক নেই।
আমরা তাদেরকে প্রতিনিয়ত বিধর্মী বলে গালি দিচ্ছি, যারা তাদের জীবনে কোরআনকে, আমাদের চেয়ে অনেক বেশি প্রতিষ্ঠিত করেছে।

আমরা ৯০% মুসলমানের দেশ। যেখানে ব্যক্তি, সমাজ, রাষ্ট্র সবকিছুই কোরানের মানদণ্ডে ফেল মেরেছে!

প্রশ্ন এসেই যায় – আমরা কি মুসলিম?
নাকি বিভ্রান্ত ইসলামিক “ফ্যান বয়” বা “ফ্যান গার্ল”?

কোন প্রশ্ন কি মাথায় আসে না?
নাকি তোমরা অন্ধ ও বধির হয়ে গেছো?

মহান আল্লাহ মুসা [আ:] কে বলেছিলেন – আমি নাখোশ হলে প্রথমে বুদ্ধিটা কেড়ে নেই। বাকি সব এমনিতেই চলে যায়।

৯০ ভাগ মুসলমানের দেশ নিয়ে কিসের গর্ব ??

গবেষনার ফলাফল দেখুন:

আরও পড়ুন:

মুসলমানেরা কেন জ্ঞান-বিজ্ঞানে পিছিয়ে ? [ Why Muslims are backward? ]