শুভ জন্মদিন বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ রেহানা

বাবা রাষ্ট্রপ্রধান কিন্তু তাঁর ছোট মেয়েকে দেখে বোঝা যায় না। কখনও স্কুলে আসেনি বাবার পতাকাবাহী গাড়িতে করে।
মেয়ের মেট্রিক পরীক্ষা। পরীক্ষাকেন্দ্র ধানমন্ডি বয়েজ স্কুল। বাবা বললেন, আমার অফিসে যাওয়ার পথেই পরীক্ষাকেন্দ্র, তোকে আমি নামিয়ে দেবো। মেয়ে নারাজি। সে বাবার গাড়ীতে করে পরীক্ষা দিতে যাবেনা।
সেবছর মেট্রিক পরীক্ষার মেধাতালিকায় মেয়েদের মধ্যে অষ্টম হল মেয়েটি।

সবার আশা ছিল, ইন্টারমিডিয়েটে আরো ভালো করবে। প্রস্তুতিও নিচ্ছিলেন সেভাবে। কিন্তু তাঁর ইন্টারমিডিয়েট পরীক্ষা দেয়া হয় না বাংলাদেশে। তার আগেই ১৫ আগস্টের কালো রাতে বাবা-মা-ভাইসহ পরিবারের ১৮ জন নিহত হন। বড় বোনের সাথে মেয়েটি তখন ছিল দেশের বাইরে।

এর পরে একাধিক বার সুযোগ আসে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার অংশীদার হওয়ার। কিন্তু ক্ষমতার মোহ তাঁকে ছুঁতে পারেনি। বড় বোন তিনবার দেশের প্রধানমন্ত্রী; মেয়ে ব্রিটেনের সংসদ সদস্য; তারপরেও বঙ্গবন্ধুর ছোট মেয়ে সাধারণের কাতারে থাকতে পছন্দ করেন।

তিনি সাধারণ থেকে, অসাধারণ দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।
শুভ জন্মদিন বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহানা

 

 

Read Previous

সাড়ে সাত শতাংশ ভ্যাট প্রত্যাহারের আন্দোলন

Read Next

সলিমুল্লাহ এতিমখানা – তিন বছরের যুদ্ধের আজ বিজয়