আমি স্বপ্ন দেখি – মার্টিন লুথার কিং জুনিয়র

– আগস্ট ২৮, ১৯৬৩ – লিঙ্কন মেমোরিয়াল হল, ওয়াশিংটন ডিসি

“মার্টিন লুথার কিং জুনিয়র” ১৭ মিনিটের এই বক্তৃতাটি করেন – ১৯৬৩ সালের ২৮ আগস্ট মাসে ওয়াশিংটন ডিসিতে অনুষ্ঠিত “মার্চ অন ওয়াশিংটন ফর জব এন্ড ফ্রিডম” নামে আমেরিকান-আফ্রিকানদের “সামাজিক অধিকার” প্রতিষ্ঠার জন্য লং মার্চ ও মহা-সমাবেশে। এই দিনটি ছিল আব্রাহাম লিংকন এর বন্ধনমুক্তির ঘোষণা (Emancipation Proclamation) সই করার ১০০ বছর পূর্তি।

এই সমাবেশ আমেরিকার ইতিহাসে “সামাজিক অধিকার” প্রতিষ্ঠায় এটি সবচেয়ে বড় এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মহা-সমাবেশ। এই সমাবেশে এ যোগ দেবার জন্য ২০০০ বাস, ২১ টি স্পেশাল ট্রেন, ১০ টি এয়ারলাইন্স এর সকল ফ্লাইট ও অসংখ্য গাড়িতে করে মানুষ ওয়াশিংটনে এসেছিল। ওয়াশিংটন মনুমেন্ট থেকে লিঙ্কন মেমোরিয়াল পর্যন্ত যাত্রায় প্রায় ২ লক্ষ জনতা জাতিগত বৈষম্যের বিরুদ্ধে এবং কাজ ও সামাজিক অধিকারের দাবীতে এক মার্চে অংশগ্রহণ করে। মুল আন্দোলন আফ্রিকান আমেরিকানদের হলেও, ২লক্ষ সমর্থকের মধ্যে ও ৫০,০০০ ছিল সাদা মানুষ। সকল ধর্মের, সকল শ্রেণীর মানুষের সাথে এই সমাবেশে Harry Belafonte, Marlon Brando, Sammy Davis, James Garner, Bob Dylan এবং Joan Baez এর মত তারকারাও এসেছিল।

ফিলিপ রেডলফ (ইউনিয়ন নেতা) এধরনের একটি মার্চ ১৯৪১ সালের কোন একটি সময় সংগঠিত করার চেষ্টা করেছিলেন। সেই যাত্রা ততটা বড় করে করা সম্ভব না হলেও পেসিডেন্ট রুজভেল্ট “ফেয়ার এমপ্লয়মেন্ট প্রাকটিস (Executive Order 8802 – Fair Employment Act) করতে বাধ্য হন। পরে ৬০ এর দশকে যখন সামাজিক মুক্তির আন্দোলন বেগবান হয় তখন পুনরায় এই আয়োজনের চেষ্টা করা হয়।

“মার্টিন লুথার কিং জুনিয়র” ১৭ মিনিটের এই বক্তৃতাটির মাধ্যমে, ঘোষণা দেন “জাতিগত বৈষম্যের দিন শেষ করার”, ডাক দেন সমতার। “আই হ্যাভ এ ড্রিম” নামে এই বক্তৃতাটি পরিচিত হয়েছে। তবে অনেকেই বলেন বক্তৃতাটি লেখার শুরুর দিকে এই শিরনাম ছিল “”Normalcy, Never Again” যা বক্তৃতাটি লিখে শেষ করার পর পরিবর্তন করা হয় এবং পরিবর্তিত সংস্করণটিই পড়া হয়। এই বক্তৃতাটি ভোটের মাধ্যমে ১৯ শতকের সেরা বক্তৃতা হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে। “আই হ্যাভ এ ড্রিম” ভাষণটি শুধুমাত্র আমেরিকার ইতিহাসেই নয় সারা পৃথিবীর মুক্তিকামী মানুষের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

Read Previous

যদি কিছু আমারে শুধাও । গান সংগ্রহ

Read Next

Tum gagan ke chandrama (raga yaman) hindi film (song from sati-savitri)