ঋতুসংগীত- বর্ষা ঋতু

বর্ষা নিয়ে এই উপমহাদেশের মানুষের আবেগের শেষ নেই। শিক্ষিত সুধী জনের যেমন বর্ষার গান আছে, প্রাকৃতজনেরও আছে বর্ষার গান। সঙ্গীতে বর্ষার বিচরণ সেই অর্থে সার্বজনীন। বর্ষার জন্য তৈরি হচ্ছে লক্ষ হাজার গান। বিভিন্ন ধরনের, বিভিন্ন শ্রেণীর। বর্ষার জন্য তৈরি হয়েছে সর্বাধিক ঋতু ভিত্তিক রাগের। বেরিয়েছে অসংখ্য রেকর্ড, ক্যাসেট, সিডি। সেভাবে দেখতে গেলে বর্ষা সবচেয়ে সেলিব্রেটেড ঋতু। এই বর্ষাকালে সেই গানগুলোকে সহজে শোনার জন্য একটা তালিকা করে দিলাম। শুনুন। ভালো লাগলে শেয়ার করুন।

 

শুরু হোক লীলাময় পাত্রর লেখা, জয় সরকারের সুরে গেয়েছেন শ্রীকান্ত আচার্যের গাওয়া – “আমাকে সারাটা দিন মেঘলা আকাশ” দিয়ে।

https://www.youtube.com/watch?v=KJTzTqSPHVc

রাগ বা রাগাশ্রয়ী বর্ষার গান:

যারা রাগাশ্রয়ী গান বা শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের ভক্ত তারা বর্ষার রাগ নিয়ে করা আয়োজনটি শুনতে পারেন। বর্ষার জন্য দু ধরনের রাগ নিয়ে আপাতত লেখার পরিকল্পনা করেছি। এর মধ্যে মালহার বা মল্লার পরিবার এর রাগ মিয়া-কি-মালহার, মিয়া-মল্লার কিছুটা এগিয়েছে। একটু সময় পেলে “গৌড়-সারং” নিয়ে লিখবো। বর্ষার রাগে অনেক সুন্দর গান আছে যেটার কথা আবার বর্ষার নয়। সেসব গানগুলো ওই রাগ সিরিজে পাবেন। এখানে কথাতে বর্ষার বিষয় আছে এমন বা যন্ত্রসঙ্গীতগুলো পাবেন।

 

বর্ষায় রবীন্দ্রনাথের গান:

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর | Rabindranath Tagoreরবীন্দ্রনাথের গান ছাড়া বাঙ্গালীর বর্ষা আসেও না, যায়ও না। ঠিকমতো বসেও না বাংলার বা আমাদের মনের মাটিতে। রবীন্দ্রনাথ সবচেয়ে বেশি বুঝেছিলেন আমাদের মন। তাইতো লিখে গেছেন ১০০র বেশি গান বর্ষা নিয়েই। চলুন ঘুরে আসা যাক রবীন্দ্রনাথের বর্ষার নিবেদনে:

১. আজি ঝরঝর মুখর বাদল দিনে–  মান্না দে

২. মন মোর মেঘের সঙ্গী – রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা

৩. এমন দিনে তারে বলা যায় – শ্রীকান্ত আচার্য

৪. গহন ঘন ছাইল গগন ঘনাইয়া  – শ্রীকান্ত আচার্য

৫. ঝরঝর বরিষে বারিধারা  – শ্রীকান্ত আচার্য

৬. ওই আসে ওই অতি – দেবব্রত বিশ্বাস

৭. হেরিয়াশ্যামল ঘন নীল গগনে – দেবব্রত বিশ্বাস

৮. নীল নবঘনে আষাঢ় গগনে  – রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা

৯. হৃদয় আমার নাচে আজিকে  – শ্রীকান্ত আচার্য

১০. শাওন গগনে ঘোর ঘনঘটা – পণ্ডিত জসরাজ ধ্রুপদী আলাপ সহ গেয়েছে:

 

নজরুলের গান:

১. মেঘমেদুর বরষায় কোথায় তুমি – হৈমন্তী শুক্লা

২. এমনি বরষা ছিলো সেদিন – কৌশিকী চক্রবর্তী

৩. বরষা ঐ এল বরষা (মেঘ মালহার রাগে) – মোহাম্মাদ শোয়েব।

৪. রুম ঝুম বাদল আজি বরষে – কমল ঝরিয়া (১৯৩২)।

৫. ঝর ঝর ঝরে শাওন ধারা – অখিলবন্ধু ঘোষ (রামদাসী মালহার রাগ)

৬. পরদেশি মেঘ যাওরে ফিরেপণ্ডিত অজয় চক্রবর্তী

৭.  শাওন রাতে যদি স্মরণে আসে মোরে – মান্না দে

 

বর্ষায় দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের গান (দ্বিজেন গীতি):

১. বরষা আইলো ওই – কোকিলা লাহিড়ী (রাগ কেদার এর উপরে করা কম্পোজিশন)

 

বর্ষায় সুমনের গান:

Kabir Sumon | কবীর সুমনআমাদের বেঁড়ে ওঠার সময়ে আমাদের সবচেয়ে কাছে ছিলেন সুমন চট্রোপাধ্যায়, যিনি পরে কবীর সুমন। কুষ্টিয়ার সেই শহরটাতে আমাদের সামনেই ইঁট পাথর বাড়ছিলো। বন্ধুত্ব, রাজনীতি,  সামাজিকতাও বদলে যাচ্ছিল। সেই শহরে বৃষ্টি হলেই সাইকেল নিয়ে বেরিয়ে পড়তাম বন্ধুরা মিলে। শহরতলীর রাস্তা বেয়ে দুরে দুরে চলে যাওয়া, বা শহরের রাস্তায় প্রতিটি বন্ধুর মন আটকে থাকা বাড়িটার সামনে গিয়ে টুনটুন বেল বাজিয়ে এক মিনিট ভয়ে ভয়ে দাড়িয়ে আবার দ্রুত সাইকেল চালিয়ে সরে পড়া। শহরতলীর কোন এক দোকানে এক কাপ চা। ফাস্ট বুক সেকেন্ড বুক দিয়ে ভাগাগাগি একটা সিগারেট। সেসময় সুমন একটানা আমাদের মনে গেয়ে চলতেন “প্রোমোটার শোনে টাকার বদলে টাকার বদলে বর্ষার গান, রবীন্দ্রনাথ একলা ভেজেন, আমাকে ভেজান। সেই হাতছানি দিয়ে ডেকে নিয়ে গিয়ে দুম করে মেঘদূতের নাম দিয়ে দিলেন – আহাম্মক

 

 

বর্ষায় অতুলপ্রসাদের গান:

১.  মেঘেরা দল বেঁধে যায় – সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়।

২. শ্রাবণ ঝুলাতে বাদল রাতে – নূপুরচন্দ্র ঘোষ

 

বর্ষায় আধুনিক বাংলা:

১.  আকাশ এতো মেঘলা যেও নাকো একলা – সুধীন দাসগুপ্তর সুরে সতীনাথ মুখোপাধ্যায় গেয়িছিলেন।

২. আমাকে সারাটা দিন মেঘলা আকাশ – লীলাময় পাত্রর লেখা, জয় সরকারের সুরে গেয়েছেন শ্রীকান্ত আচার্য।

৩. ওগো বর্ষা তুমি ঝরোনা গো – মান্না দে

৪. এলো বরষা যে সহসা মনে তাই – সতীনাথ মুখোপাধ্যায় গেয়িছিলেন

৫. আজ এই বৃষ্টির কান্না দেখে – ওস্তাদ নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরী (সুরকারঃ লাকী আখন্দ, গীতিকারঃ কাওসার আহমেদ চৌধুরী)

৬. এই বৃষ্টি ভেজা রাতে চলে যেও না – রুনা লায়লা।

৭. ওগো বৃষ্টি আমার চোখের পাতা ছুয়ো না – হৈমন্তি শুক্লা

৮. এই এখানে থেমে বৃষ্টি হচ্ছে খুব – তারিন জাহান

৯. পাতা ঝরা বৃষ্টি – কৌশিকি চক্রবর্তী

১০. বরষারও মেঘ ভেসে যায় – অখিলবন্ধু ঘোষ (সুরদাসী মালহার রাগের উপরে)

১১.  শাওন রাতে খেয়া পারাপারেপণ্ডিত অজয় চক্রবর্তী

১২. গৌড়-মালহার রাগে – শ্রাবণ মেঘ মায়াপণ্ডিত অজয় চক্রবর্তী

১৩. মিয়া মালহার রাগের উপরে – শ্রাবণ ঘনায় দু নয়নে– নচিকেতা চক্রবর্তী

১৪. হায় বরষা, এমন ফাগুন কেড়ে নিওনা – সতীনাথ মুখার্জী

১৫. এলো বরষা – পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তী

১৬. বৃষ্টি পড়ে অঝর ধারায় – বাপ্পা মজুমদার

১৭. বৃষ্টি বৃষ্টি বৃষ্টি হায় কি অপরূপ সৃষ্টি – লতা মুঙ্গেশকর

১৮. এলেই যদি কেন চলে যাবে ও তুমি – শেখ ইশতিয়াক

১৯. এলো বরষা যে সহসা – সতীনাথ মুখার্জী

২০. আমি বৃষ্টির কাছ থেকে কাঁদতে শিখেছি– গীতিকার গাজী আব্দুর রাজ্জাক, সুরকার দেবু ভট্টাচার্য। শিল্পী সুবীর নন্দী।

২১. রিম ঝিম ঝিম বৃষ্টি – মান্না দে।

২২. বড় সাধ হয় জানতে – আনোয়ার উদ্দিন খান।

 

রাগাশ্রয়ী ফিউশন:

আরাম হবে কোক স্টুডিওর একটি পরিবেশনা দিয়ে শুরু করলে:

১. রবীন্দ্রনাথের গান ঝর ঝর বরিষে বারিধারা – ওস্তাদ রশিদ খান ও নচিকেতা চক্রবর্তীর ফিউশন

২. Garaj Baras – Ali Azmat (Junoon) & Rahat Fateh Ali Khan (Qawwal Bacchay)

 

বর্ষার গজল:

১. Ab Ke Baras – Hariharan

২. GARAJ BARAS PYASI DHARTI PAR – JAGJIT SINGH

৩. Abke Baras Bhi Reh Gaye – Aslam Khan

৪. Ab Ke Sawan Mein Baras Ke – Osman Mir

 

বর্ষার ঠুমরি

১. Ab ke sawan – Begum Akhtar

 

বর্ষার কজরি:

বর্ষা ঋতুর উত্তর প্রদেশের গান কাজরি। আষাড় শ্রাবন ও ভাদ্র মাসে গাওয়া হয়।

২. গিরিজা দেবীর কাজরী – রুম ঝুম কে বারসান । একই গান শুভমিতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর গলায়:

 

চলচ্চিত্রে বর্ষার গান:

১. এই মেঘলা দিনে একলা (ছবি: শেষ পর্যন্ত, সঙ্গীত: হেমন্ত মুখার্জী)।

২. ঝুম ঝুম বৃষ্টি, কি অনাসৃষ্টি – কুমার বিশ্বজিত ও কনা (ছবি: জাগো)।

৩. বরষার প্রথম দিনে – গীতিকার হুমায়ূন আহমেদ, শিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন, ছবি- দুই দুয়ারী।

৪. আমি বৃষ্টি দেখেছি – অঞ্জন দত্ত (ছবি: রঞ্জনা আমি আর আসব না)

৫. Rimjhim gire sawan – Kishore Kumar

৬. Ghanan Ghanan – Lagaan – A.R. Rahman

৭. Barso Re – Guru – Shreya Ghoshal – A.R. Rahman

 

বর্ষার লোকগীত:

১. আল্লাহ ম্যাঘ দে, পানি দে, ছায়া দে – রুনা লায়লা।

 

বর্ষার যন্ত্রসঙ্গীত:

১. ওস্তাদ বিলায়েত খান ও ওস্তাদ ইমরাত খানের সেতার ও সুরবাহারে মিয়া মালহার

২. ওস্তাদ সুলতান খান সারেঙ্গীতে – মিয়া মালহার

৩. পণ্ডিত বুধাদিত্য মুখোপাধ্যায়ের সেতারে – মিয়া মালহার

৪. পণ্ডিত হরিপ্রসাদ চৌরাসিয়ার বাঁশিতে – মিয়া মালহার

 

বাংলা ব্যান্ড:

১. শ্রাবনের মেঘ গুলো– ডিফারেন্ট টাচ

২. বৃষ্টি দেখে অনেক কেঁদেছি – সোলস (পার্থ বড়ুয়া)

৩. বৃষ্টি নামছে আজ আকাশ ভেঙ্গে – অর্থহীন

৪. এই বৃষ্টি ভেজা রাতে– আর্টসেল

 

আরও যে গানগুলো ইদানিং শুনেছি:

১. জলের গানের- বৃষ্টি পড়ে টাপুর টুপুর:

 

২. চলো বৃষ্টিতে ভিজি– হাবিব

৩. যদি মন কাঁদে -শাওন

৪. বৃষ্টি ছুয়ে – তাহসান রহমান খান।

৫. টিপ টি বৃষ্টি – আসিফ আকবর ও আঁখি আলমগীর।

৬. যাও বলো তারে – কনা।

৭. বাদলা দিনে মনে পড়ে ছেলে বেলার গান, বৃষ্টি পড়ে টাপুর টুপুর নদে এলো বান – হাবিব ও কণা।

৮. মেঘের গায়ে নুপুর পায়ে নাচে বর্ষা – ফুয়াদ ফিচারিং কনা।

৯. দে রে না না, মেঘ ঝরনা – তিশমা

১০. বৃষ্টি পড়ে টাপুর টুপুর পায়ে দিয়ে সোনার নূপুর -সেলিম চৌধুরী

 

 

বর্ষার খেয়াল:

১. Miyan Malhar: Ustad Fateh Ali Khan – Amjad Amanat Ali Khan

২. পণ্ডিত যশরাজের গলায় – মিয়া মালহার

৩. ওস্তাদ আমির খানের গলায় – মিয়া মালহার

 

বর্ষার ধ্রুপদ:

১. ডাগর ভাইদের  – মিয়া মালহার

২. মেঘ মালহারের ধ্রুপদ

 

সূচি:

গান খেকো সূচি
সঙ্গীতের ব্যাকরণ সূচি
রাগ শাস্ত্র সূচি
রাগ চোথা সূচি
পরিবার ভিত্তিক/রাগ অঙ্গ ভিত্তিক রাগের গ্রুপ
ঠাট ভিত্তিক রাগের গ্রুপ
সময় ভিত্তিক রাগের গ্রুপ
ঋতু ভিত্তিক রাগ/গান সূচি
রস ভিত্তিক গ্রুপ
ঘরানা ভিত্তিক গান বাজনা
শিল্পী সূচি
প্রিয় গানের বানী/কালাম/বান্দিশ সূচি

 

Read Previous

দিন বদলের আড্ডা, শিলাইদহ কুঠিবাড়ি আলো টুরিস্ট কমপ্লেক্স ।

Read Next

ঋতুসংগীত-শীত