সুফি ফারুক এর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ক্যারিয়ার

১৯৯৯ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠানে তথ্য-প্রযুক্তির দায়িত্বশীল পদে চাকরি করেছেন। ২০০৮ সালে মাত্র ২৮ বছর বয়সে প্রথম বাঙ্গালী হিসেবে একটি বহুজাতিক মোবাইল টেলিফোন কোম্পানির তথ্য প্রযুক্তি প্রধানের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ২০১০ সাল থেকে নিজের তথ্য-প্রযুক্তি পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের পক্ষে (বিশেষ করে কনটেন্ট ব্যবস্থাপনা, ইন্টারনেট সার্ভিস, তথ্য প্রযুক্তি ব্যবস্থাপনা, তথ্য প্রযুক্তি নিরাপত্তা বিষয়ে) সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পে পরামর্শক হিসেবে কাজ করছেন।

এছাড়া প্রশিক্ষক, বক্তা ও প্যানেল আলোচক হিসেবে দেশে ও বিদেশে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ ও সেমিনারে অংশগ্রহণ করেছেন। এর মধ্যে সাউথ এশিয়ান নেটওয়ার্ক অপারেটরস গ্রুপ (স্যানোগ) এর বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটান ও ভারতের মুম্বাই এর কনফারেন্স, কম্পিউটার এসোসিয়েট এর ভারতের গোয়ায় অনুষ্ঠিত কনফারেন্স, হুয়াওই টেকনোলোজির মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড ও চিনে অনুষ্ঠিত কনফারেন্স, টেলিকম মালয়েশিয়া ও মাল্টিমিডিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজনে আইপি কর্মশালা অন্যতম। তথ্য প্রযুক্তি, জনসম্পদ, উদ্যোক্তা উন্নয়ন ইত্যাদি বিষয়ে ইন্ডাস্ট্রি রিসার্চ সহ দৈনিক পত্রিকাগুলোতে নিয়মিত লেখালেখি করেন। তিনি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অনেকগুলো তথ্য প্রযুক্তি সংগঠনের সদস্য।

বাংলাদেশের তথ্য প্রযুক্তিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে বেশ কয়েকটি সংগঠন ও আন্তর্জাতিক সংগঠনের বাংলাদেশ চ্যাপ্টার তৈরিতে সংগঠক হিসেবে কাজ করেছেন। তিনি একাডেমিক লেখাপড়ার পাশাপাশি তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ে বিভিন্ন পণ্য, সেবমান, কর্মপদ্ধতির উপরে ভেন্ডার সার্টিফিকেট অর্জন করেন। তিনি বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে খণ্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে সেবা দিচ্ছেন। এছাড়া বিভিন্ন উদ্যোগের মাধ্যমে – তথ্য প্রযুক্তি জনসচেতনতা তৈরি, জনপ্রিয়করণ, তথ্য প্রযুক্তি পেশায় দক্ষ জনবল তৈরি, এ খাতের উদ্যোক্তা তৈরিতে কাজ করছেন।

 

 

 

এডিট- এসএস

Read Previous

যা নিয়ে লিখি – সুফি ফারুক

Read Next

অরুণ-কান্তি কেগো যোগী ভিখারী – কাজী নজরুল ইসলাম