কিভাবে করতে চাই?

জননেত্রী শেখ হাসিনা'র আদর্শে প্রাণিত হয়ে কুমারখালী-খোকসায় একটি সুশিক্ষিত, দক্ষ, কর্মঠ ও রুচিশীল প্রজন্ম গড়ে তোলাই আমার "জয় বাংলা" - সুফি ফারুক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, কুষ্টিয়া জেলা শাখা।

জননেত্রী শেখ হাসিনা’র আদর্শে প্রাণিত হয়ে কুমারখালী-খোকসায় একটি সুশিক্ষিত, দক্ষ, কর্মঠ ও রুচিশীল প্রজন্ম গড়ে তোলাই আমার “জয় বাংলা” – সুফি ফারুক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, কুষ্টিয়া জেলা শাখা।

  • জনশক্তি উন্নয়ন :
    • শিক্ষার্থী অভিভাবকদের জন্য নিয়মিত পেশা পরামর্শ সভা।
    • সবার জন্য দক্ষতার প্রশিক্ষণ।
    • প্রতিটি ইউনিয়নে দক্ষতা কেন্দ্র।
  • জনগণের দোরগোড়ায় সরকারি পরিসেবা:
    • “হাতের কাছে এমপি” বা “এমপি হেল্প ডেস্ক” : প্রতি ১০ হাজার মানুষের জন্য একটি করে হেল্প ডেস্ক, যেখানে ডেডিকেটেড স্টাফের মাধ্যমে প্রত্যাশা/অভিযোগ রেকর্ড এবং নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সমাধান।
  • প্রযুক্তি ও নির্ভর বাণিজ্যিক কৃষি:
    • নিয়মিত কৃষি পরামর্শ সভার মাধ্যমে প্রতিজন কৃষককে বছরে নুন্যতম দুবার আধুনিক প্রযুক্তি ও কর্মকৌশলের প্রশিক্ষণ।
    • কৃষি প্রযুক্তি পণ্যের সহজলভ্যতা ও সহজে ক্রয়ের বিষয়ে বিশেষ সুবিধা।
    • কৃষি পণ্যের সংরক্ষণের জন্য কমিউনিটি স্টোরেজ ও কোল্ড স্টোরেজ।
    • আধুনিক সুবিধা সহ কৃষি পণ্যের বিশেষ বাজার প্রতিষ্ঠা।
    • কমিউনিটি অনলাইনে বাজার /মার্কেট-প্লেস প্রতিষ্ঠা।
  • জনস্বাস্থ্য: কুমারখালী-খোকসার জনগণের স্বাস্থ্য বিষয়ক সচেতনতা উন্নয়ন করে স্বাস্থ্য গঠনকে একটি সংস্কৃতিতে পরিণত করতে চাই।  যেসব রোগ সচেতনতার মাধ্যমে প্রতিরোধ-যোগ্য ও নিরাময় যোগ্য, সেসব রোগ ক্রমশ সমাজ থেকে বিদায় করতে চাই। পাশাপাশি স্বাস্থ্য সেবা দেয়াতে সামাজিক প্রতিষ্ঠান ও স্বেচ্ছাশ্রমকে প্রণোদনা দিয়ে কমিটমেন্টের মধ্যে আনতে চাই। সরকারি স্বাস্থ্য সেবাসমুহ সঠিক ভাবে পাওয়া নিশ্চিত করতে চাই। বেসরকারি খাতে স্বাস্থ্য সেবার নামে অনৈতিক বাণিজ্য বন্ধ করতে চাই।

 

  • ব্যবসা বাণিজ্য ও শিল্প উন্নয়ন: কুমারখালী-খোকসার ভৌগোলিক ও জনশক্তি নির্ভর আর্থিক সম্ভাবনাকে পূর্ণ ভাবে কাজে লাগাতে চাই। পাশাপাশি জনগণকে সংগঠিত করে এমন একটি শিল্প বিনিয়োগ-বান্ধব পরিবেশ তৈরি করতে চাই যাতে দেশের স্বনামধন্য ও বিদেশি বিনিয়োগকারীরা কুমারখালী-খোকসায় শিল্প কারখানা ও বাজার গড়ে তুলতে আগ্রহী হবেন।
  • সঠিক ধর্মীও শিক্ষা নিশ্চিতকরণ:
  • মৌলবাদ ও জঙ্গিবাদ মুক্ত বহুত্ববাদী সমাজ প্রতিষ্ঠা:
  • সুশাসন, ন্যায়বিচার ও আইনি সহায়তা:
  • দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ঝুঁকি প্রশমন :