সিস্টেম এডমিনিস্ট্রেটর এ্যপ্রিসিয়েশন দিবস (System Administrator Appreciation Day)

System Administrators Day Cakeআসছে ২৭ এ জুলাই SysAdmin Appreciation Day । পৃথিবীর সকল সিস্টেম এডমিনিস্ট্রেটর এবং সম্পৃক্ত পেশাজীবীদের জন্য একটি বিশেষ দিবস। জুলাই মাসের শেষ শুক্রবার বিশ্বব্যাপী SysAdmin দের কাজের স্বীকৃতি জানাবার জন্য এই দিবসটি পালন করা হয়।
আমার যেই নোটটি আপনি এখন পড়ছেন সেটি আমার লেখার পরে অসংখ্য কম্পিউটার সিস্টেম এর মধ্য দিয়ে আপনার সামনে এসেছে। এভাবে সারা বিশ্ব হতে প্রতিদিন আপনার কাছে আসে অন্যান্য লেখা, ইমেইল, ছবি, ভিডিও, ইত্যাদি। এটি সম্ভব হচ্ছে কারণ এই সকল কম্পিউটার সিস্টেম ও নেটওয়ার্ক কে কার্যকর রাখতে একদল সিস্টেম এডমিনিস্ট্রেটর রাতদিন কাজ করছে। আপনার অফিসের আইটি সার্ভিস দেয়া লোকটি (সিস্টেম এডমিনিস্ট্রেটর) হতে শুরু করে অসংখ্য সিস্টেম ঘুরে ফেসবুকের সিস্টেম এডমিনিস্ট্রেটর ঠিক মত কাজ করছে বলেই এটা সম্ভব হচ্ছে। একটু ভেবে দেখেছেন কি – এই মানুষগুলোই এখন আপনার জীবনে ডাক বিভাগের “রানার”, সিনেমা হলের “প্রজেকশন ম্যান”, আপনার তথ্যের “সিকিউরিটি গার্ড” এবং আরও অনেক কিছু।

এই চমৎকার সার্ভিসগুলো আমাদের কাছে যারা নিয়মিত পৌঁছে দেয় তাদেরকে বেশিরভাগ সময় আমরা চিনি না, বা চেনার প্রয়োজন মনে করি না। এরকম একজন কলিগ আমাদের অফিসগুলোর কোনায় বন্ধ একটি ঘরে সারাদিন (কখনও সারারাত) বসে কি যেন করে? আমাদের সাধারণ ধারনা হচ্ছে মেশিনের সাথে কাজকরা ওই লোকগুলোও এক ধরনের মেশিন। এই দিনটিকে সামনে রেখে সেই কলিগদের পেশাদারি ও ব্যক্তিগত জীবন সম্পর্কে জানতে চলুন দুমিনিট সময় দেয়া যাক।

– ওদের কাজ হচ্ছে অসংখ্য টার্মিনাল, রাউটার, সুইচ, প্রসেসর পুল, স্টোরেজ পুল, পাওয়ার, কুলিং, সার্ভার সার্ভিসেস এবং ডাটাবেসগুলো খুঁজে বের করা, ইন্সটল করা ও রক্ষণাবেক্ষণ করা। একটু এদিক ওদিক হলেই সার্ভিস বন্ধ হয়ে যায়। আর সার্ভিস যদি বন্ধ হয়ে যায় তবে তার পেছনের সমস্ত কাজ ব্যবহারকারী হিসেবে আপনার কাছে অর্থহীন। তাই ওর কাজ ১০০% শেষ করার আগে বোঝানোর সুযোগ নাই যে ও কোন কাজ করেছে।

– সিস্টেম এডমিনিস্ট্রেটর জানে যে ওর একটি ভুল কমান্ডে হারিয়ে যেতে পারে আপনার ফেসবুক প্রোফাইল, আপনার ডেস্কটপ, আপনার মেইল ইন-বক্স, আপনার ব্যাংক একাউন্ট তথ্য। একটু অসাবধান হলে আপনার অমূল্য তথ্য চলে যেতে পারে কোন হ্যাকার বা তথ্য চোরের হাতে। এই ভয়ঙ্কর চাপ মাথায় নিয়ে ওদেরকে সব সময় কাজ করতে হয়।

– কাজের ধরনের কারণে ওদের সামাজিক জীবন থাকেনা বললেই চলে। সঙ্গত কারণেই “Heatless Tech Geek” বলে নিজের প্রেমিক/প্রেমিকা বা স্বামী/স্ত্রীর কাছে নিয়মিত গালি খায়। তার পরও রাত জেগে আপনার বার্তাটি আপনার প্রিয় মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়। তারপর পান থেকে চুন খসলেই সার্ভিস ব্যবহারকারী হিসেবে আপনিও ছেড়ে দেন না।

– সারা পৃথিবীতে তথ্য প্রযুক্তিতে প্রয়োজনের তুলনায় রিসোর্স কম দেয়া হয়, এর মধ্যেই ওকে সব ম্যানেজ করতে হয়। কিন্তু তথ্য প্রযুক্তি এমন একটি কাজ যেখানে গায়ের শক্তি দিয়ে বা লোক বাড়িয়ে প্রসেসের বা স্টোরেজ ক্যাপাসিটি বাড়াবার সুযোগ নেই। এর মধ্যে ওদেরকে ম্যানেজ করতে হয়ে।

– ওদেরকে মেশিনারিজ এর জন্য তৈরি একটি কৃত্রিম পরিবেশে সর্বক্ষণ কাজ করতে হয় । এ পরিবেশের দীর্ঘ মেয়াদি শারীরিক ও মানসিক অবস্থার উপর নেতিবাচক প্রভাব থাকে।

– SysAdmin রা দিনের ৩৬৫ দিন একই ধরনের পেশাদারি চাপের মধ্যে থাকে। সার্ভিস ব্যবহারকারীদের তোপের মুখে থাকে।

– সবচেয়ে বড় যে দুঃখটি নিয়ে কাজ করতে হয় সেটি হল – ওদের কাজটাই কেউ বোঝে না। এছাড়া অনেক কিছুই রয়েছে যা এভাবে লিখে শেষ করা যাবেনা বা আপনিই পড়বেন কেন?

System Administrator দের কাজের প্রতি সম্মান জানাতেই বিশ্বব্যাপী এই দিনটির আয়োজনের চেষ্টা। ২০০০ সালে Ted Kekatos এই দিনটি উদযাপনের উদ্যোগ নেবার পর থেকে নিয়মিত দিনটি উদযাপিত হয়ে আসছে। বিশ্বের অনেকগুলো বড় কোম্পানি এই দিনটি অফিসিয়ালি পালন করছে। আমরা ২০০৩ সাল থেকে স্বল্প পরিসরে এই দিনটি উদযাপন শুরু করে আসছি। এই দিনটিতে আনুষ্ঠানিকতার চেয়ে বেশি জরুরী স্পিরিটটি অনুভব করা। যদি সেবা ব্যবহারকারীরা স্পিরিটটা অনুভব করেন তবেই সফলতা।

আপনি যদি মনে করেন ওদের কাজ আপনার জীবনে প্রয়োজনীয়, অন্তত এই একটি দিনে ওদের সাথে ভাল ব্যবহার করুন। একটু হেসে কথা বলুন, কাজের একটু প্রশংসা করুন, তার সাথে একটু গল্প করুন, একটু পেশাদারি সহায়তার আশ্বাস দিন। যদি মনে করেন কনফারেন্স রুমে একটি ছোট্ট কেক কাটতে পারে, একটু ছোট উপহার দিতে পারেন। System Administrator Appreciation Day লিখে গুগল সার্চ দিয়ে আরও আইডিয়া পাওয়া যেতে পারে।

আমার তথ্য প্রযুক্তি কেরিয়ার শুরু করেছিলাম System Administrator হিসেবে। সেজন্য এই দিনটি কাছাকাছি হলেই মনটা আকুপাকু করে। এবার ভাবছি নতুন-পুরাণ কিছু কলিগদের নিয়ে একটি আড্ডার আয়োজন করে ফেললে কেমন হয়।

Read Previous

গানের খোঁজে ঘর পালানো – পণ্ডিত ভিমসেন যোশি

Read Next

পাটের জিন-নকশা উন্মোচনে প্রযুক্তিতে কুষ্টিয়ার পক্ষ থেকে অভিনন্দন