Breaking News :

বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক নাম হোক – দক্ষ পেশাজীবীদের দেশ

আমাদের সম্পদ বলতে ১৬ কোটি মানুষের একটি দেশ। এর মধ্যে ৫৮% জনসংখ্যা কর্মক্ষম যা পৃথিবীর বেশিরভাগ দেশেই বিরল। দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা ৩৬০ ডিগ্রি ঘুরে যেতে পারে যদি এই কর্মক্ষম জনসংখ্যাকে যুগোপযোগী দক্ষতা দিয়ে দেশে/বিদেশে কাজে লাগাতে পারি। “দক্ষ জনশক্তি রপ্তানিকারক দেশ” হতে পারে আমাদের আন্তর্জাতিক পরিচয়। পরিচয়টি যেমন দীর্ঘস্থায়ী তেমনই সম্মানজনক।

দক্ষ জনশক্তি তৈরির জন্য জানা দরকার নতুন যুগের পেশা গুলো সম্পর্কে। সে ধরনের পেশাজীবী তৈরির কৌশল সম্পর্কে। এবং সে ধরনের যুগোপযোগী জনশক্তি তৈরির জন্য প্রশিক্ষণ প্রশিক্ষক, ব্যবস্থাপনা ও অবকাঠামো তৈরি করা দরকার। এই খাতের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা, সুযোগ ও সম্ভাবনা নিয়ে এই ধারাবাহিক।

সব বিষয়ে আপনার জ্ঞান থাকবে না; এটাই স্বাভাবিক। তবে উদ্যোক্তা হিসেবে – অর্থ সাশ্রয়, সময় সাশ্রয়, মুনাফা বাড়ানো, ভ্যালু তৈরির বিষয়ে – আপনার চেয়ে ভাল কেউ বুঝবে না। আপনি আপনার সামর্থ্যের মধ্যে সবচেয়ে সঠিক সিদ্ধান্তটিই দেবেন।

প্রস্তাবিত বিষয়ে আপনার যথেষ্ট জানাশোনা থাকলেতো কথাই নেই। আপনি দুটো ভাত টিপলেই সিদ্ধান্তে পৌঁছে যেতে পারবেন। জানাশোনা না থাকেলে কাজটা একটু কঠিন। আপনাকে কিছু সাধারণ কৌশলের আশ্রয় নিতে হবে।

প্রথমে মনে রাখতে হবে – না জানলে, জানার ভান করা যাবে না। না জানা অবস্থান থেকে সমাধানের পথ আছে। জানার ভান করে সিদ্ধান্ত দিলে – পরিণাম সরাসরি ব্যবসার ক্ষতি।

আপনার কাছে কোন প্রস্তাব কারিগরি হিসেবে দুর্বোধ্য মনে হলে – ওটা বিস্তারিত বোঝার চেষ্টা করবেন না। ওটার মধ্যে ঢোকার চেষ্টা করলে একসময় কনফিউজড হয়ে যেতে পারেন। তখন ভুল সিদ্ধান্ত নেবার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি।

ধরুন আপনার প্রধান তথ্য প্রযুক্তি কর্মকর্তা একটি নতুন সার্ভার কিনতে চাচ্ছে। কারণ হিসেবে উপস্থাপন করছে তার পুরানো সার্ভার ধীরে কাজ করে। সে যায়গায় নতুন সার্ভার তো দ্রুত কাজ করবেই, সাথে হাজারটা নতুন ফিচার সাপোর্ট করবে। আপনি স্বাভাবিকভাবেই ঠোঁট উল্টে বলবেন – তাতে আমার কি?

বারবার তার সৃষ্টিশীল প্রস্তাব নিয়ে আসা, আর আপনার উষ্মা প্রকাশ – দুটোই ব্যবসার জন্য ক্ষতিকর। এটার সমাধান দরকার। তাই ওই কারিগরি বিষয়ে প্রস্তাবকারীকে আর একটু বাড়তি কাজ দিন। ওটার সুবিধা অসুবিধাগুলো আপনার বোঝার মতো মেট্রিক্সে উপস্থাপন করতে বলুন।

১. তাকে বিনীত ভাবে বলুন – আমার সার্ভার স্লো চলার কারণে ব্যবসার কি কি ক্ষতি হচ্ছে?
হতে পারে – আমার জনশক্তি অতিরিক্ত ব্যাবহার হচ্ছে, রক্ষণাবেক্ষণ খরচ বেশি যাচ্ছে, সার্ভিস দিতে দেরি হওয়ায় রেভিনিউ লস হচ্ছে, ইত্যাদি।
২. নতুন সার্ভারের সার্ভিস আমাকে এখন থেকে কি বাড়তি সুবিধা দেবে?
হতে পারে – জনবল কম লাগবে, অন্য খরচ কমবে, বিশে লোককে সার্ভিস দিয়ে রেভিনিউ বাড়বে, ইত্যাদি।
৩. এরপর এই লাভক্ষতিগুলোর মান টাকায় বের করে নিয়ে আসতে বলুন। তিনি ভাল না পারলে ফাইনান্সের কোন লোকের সাথে বসিয়ে দিন।

এরপর যোগ বিয়োগ সাধারণ। আপনার সিদ্ধান্তও সহজ।

 

 

 

এডিট- এসএস

Read Previous

বালিকা পথ-শিশুদের সমস্যা – একটি সাধারণ জরিপ

Read Next

রাজনৈতিক দিনপঞ্জি