Breaking News :

রাগ মিয়া-কি-মালহার, মিয়া-মল্লার

রাগ মিয়া মালহার বা মিয়া-কি-মালহার – শ্রোতা সহায়িকা নোট (১)

মালহার বা মল্লার বর্ষার রাগ। মালহার রাগের পরিবার বেশ বড়ো। মালহারের যত প্রকার আছে তার মধ্যে মিয়া-কি-মালহার অন্যতম।

 

“মিয়া-কি-মালহার” বা “মিয়া মালহার” বা “মিঞা-কী-মল্লার” বর্ষার রাগ। এই রাগ দিয়ে বৃষ্টিকে পৃথিবীর বুকে বরণ করে নেয়া হয়। মিয়া মালহার খুব বড় রাগের একটি। রাগটিতে কানাড়া এবং মালহারের সমাবেশ ঘটেছে। এর রাগের স্রষ্টা তানসেন। মিয়া তানসেনের মালহার বলে এর নাম “মিয়া কি মালহার”। কফি ঠাটের এই রাগের বাদী “মধ্যম” বা “মা”, জাতি ষাড়ব-ঔড়ব।

 

আমার কাছে মিয়া-মালহার বৃষ্টি শুরু হয়ে থিতু হবার পরে শোনার রাগ। চলমান বৃষ্টিতে সুরবাহারে মিয়া কি মালহার শোনার অনুভূতি অসাধারণ।

শোনা শুরু করা যাক কোক স্টুডিওর একটা গান দিয়ে:

 

 

 

কাজী নজরুল ইসলামের মিয়া-কি-মালহার:

নজরুলের অনেক গান রাগাশ্রয়ী। নির্দিষ্ট রাগের আশ্রয়ে যে গানগুলোতে সুর করা হয়েছে, সেগুলোর পুরো সুরে রাগের অবয়ব বজায় রাখার চেষ্টা থেকেছে; খুব বেশি রাগভ্রষ্ট হয়নি। তাই নজরুলের গানগুলো কান তৈরিতে বেশি উপযোগী বলে আমার কাছে মনে হয়।

১. স্নিগ্ধ শ্যাম বেণী বর্না (তালঃ কাহার্‌বা)

 

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথের মিয়া-কি-মালহার:

কবিগুরু তার অনেক কম্পোজিশনে প্রচলিত রাগের আশ্রয় নিলেও অনেক সময় রাগের কাঠামোতে তিনি আটকে থাকতে চাননি। তাঁর সুরের পথ রাগের বাইরে চলে গেছে প্রায়শই। আমার কাঁচা কান যা বলে, তাতে বিশুদ্ধ রাগাশ্রয়ী গান হিসেবে তাঁর গান অনেক ক্ষেত্রেই খুব ভালো উদাহরণ নয়।

১. কোথা যে উধাও হল -তাল: আড়াঠেকা , রচনাকাল (১৩৩২ বঙ্গাব্দ), (১৯২৫ খৃষ্টাব্দ)

২. তোমার গীতি জাগালো স্মৃতি – তাল: তেওরা, রচনাকাল (১৩ আষাঢ়, ১৩৩৪ বঙ্গাব্দ), রচনাকাল (২৮ জুন, ১৯২৭, খৃষ্টাব্দ)

 

চলচ্চিত্রে মিয়া-কি-মালহার:

১. সত্যজিতের চলচ্চিত্র “জসলা ঘর“এ সালামত আলী খানের গলায় ।

২. Bol re papihara – Guddi – Composer Vasant Desai

 

https://www.youtube.com/watch?v=VlEuVxXlGc4

 

আধুনিক গানে মিয়া-কি-মালহার:

১.

 

গজলে মিয়া কি মিয়া-কি-মালহার:

১. ওস্তাদ মেহেদি হাসান খান এর গজল – Ek baas tu hi nehin mujhse khafa

 

ভজনে মিয়া-কি-মালহার:

১. Shyam Bina Unye Ye Badara -by Pandit Jasraj (Mewati)

২. Prof. Dr. Shailendra Goswami – Bhajan in Raga Miyan Ki Malhar

 

অন্যান্য:

১.

 

যন্দ্রে মিয়া-কি-মালহার:

 

সেতার:

১. ইমদাদখানী ঘরানার ওস্তাদ বিলায়েস খাঁ সাহেবের সেতারে – মিয়া-কি-মালহার

১. ইমদাদখানী ঘরানার ওস্তাদ শহীদ পারভেজ খানের সেতারে – মিয়া-কি-মালহার

 

সরদ:

১.মাইহার ঘরানার খলিফা ওস্তাদ আলী আকবর খানের সরদে- মিয়া-কি-মালহার

২. ওস্তাদ আমজাদ আলী খাঁর সরদে- মিয়া-কি-মালহার

 

খেয়াল:

১. কিরানা ঘরানা পণ্ডিত ভীমসেন জোশী – মিয়া-কি-মালহার

২. রামপুর সহসওয়ান ঘরানার ওস্তাদ রশিদ খানের – মিয়া-কি-মালহার

২. ওস্তাদ আমীর খান সাহেব এর- মিয়া-কি-মালহার

৩. পণ্ডিত কুমার গান্ধর্বের – মিয়া-কি-মালহার

৪. জয়পুর ঘরানার শিল্পী কিশোরী আমনকারের গলায় – মিয়া-কি-মালহার

 

রাগের কারিগরি বিষয়:

আরোহ: সা, মা রে পা, ণি ধা নি সা
অবরোহ: র্সা ণি ধা ণি মা পা, জ্ঞা মা রে্ সা
পাকাড়: রে মা রে সা ণি, মা পা ণি ধা নি সা, সা রে পা জ্ঞা মা রে সা

আরোহ-আবরোহ এই লিঙ্ক গুলোতে গিয়ে শুনে নিতে পারেন । লিংক ১  ।

 

এই রাগটির বিশেষত্বও অতি কোমল গান্ধার, যেটা একটু “মধ্যম” বা “মা” এর দিকে ঝুঁকে যাওয়া। আর দুটি নিষাদ এ সাথে লাগা।

 

টিউটোরিয়াল:

যেকোনো রাগের স্বরের চলাফেরা বোঝার জন্য ২/৫ টি স্বর-মালিকা বা সারগম-গীত শোনা দরকার। স্বর মল্লিকার পাশাপাশি দু একটি  লক্ষণ গীত (বা ছোট খেয়াল) শুনলে সহজ হতে পারে। লক্ষণ গীত মূলত শেখানো হয় রাগের লক্ষণগুলো সহজে ধরতে। লক্ষণ গীত ছোট খেয়াল প্রায় একই কাজ করে। অনলাইনে অনেক গুলো আছে। একটু খোঁজাখুঁজি করলে পেয়ে যাবেন। স্যাম্পল হিসেবে নিচের লিংক দেয়া হল।

১. এনিসিআরটির টিউটোরিয়াল

 

মিয়া-কি-মালহার সম্পর্কে আরও জানার জন্য:

১. সারিতা পাঠক এর “মিয়া-মালহার” টিউটোরিয়াল।

২. সিদ্ধার্থ সালাথিয়ার “মিয়া-মালহার” টিউটোরিয়াল।

 

রিলেটেড রাগ:
মালহার

 

সিরিজের বিভিন্ন ধরনের আর্টিকেল সূচি:

গান খেকো সিরিজ- সূচি
শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের ব্যাকরণ বা শাস্ত্র সূচি
রাগ শাস্ত্র- সূচি
রাগ চোথা- সূচি
রাগের পরিবার ভিত্তিক বা অঙ্গ ভিত্তিক বিভাগ
ঠাট ভিত্তিক রাগের বিভাগ
সময় ভিত্তিক রাগের বিভাগ
ঋতু ভিত্তিক গান (ঋতুগান) এর সূচি
রস ভিত্তিক রাগের বিভাগ
উত্তর ভারতীয় শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের রীতি/ধারা
সঙ্গীতের ঘরানা- সূচি
সুরচিকিৎসা- সূচি
শিল্পী- সূচি
প্রিয় গানের বানী/কালাম/বান্দিশ- সূচি
গানের টুকরো গল্প বিভাগ

 

Declaimer:

শিল্পীদের নাম উল্লেখের ক্ষেত্রে আগে জ্যৈষ্ঠ-কনিষ্ঠ বা অন্য কোন ধরনের ক্রম অনুসরণ করা হয়নি। শিল্পীদের সেরা রেকর্ডটি নয়, বরং ইউটিউবে যেটি খুঁজে পাওয়া গেছে সেই ট্রাকটি যুক্ত করা হল। লেখায় উল্লেখিত বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত যেসব সোর্স থেকে সংগৃহীত সেগুলোর রেফারেন্স ব্লগের বিভিন্ন যায়গায় দেয়া আছে। শোনার/পড়ার সোর্সের কারণে তথ্যের কিছু ভিন্নতা থাকতে পারে। আর টাইপ করার ভুল হয়ত কিছু আছে। পাঠক এসব বিষয়ে উল্লেখে করে সাহায্য করলে কৃতজ্ঞ থাকবো।

*** এই আর্টিকেলটির উন্নয়ন কাজ চলমান ……। আবারো আসার আমন্ত্রণ রইলো।

Read Previous

রাগ মালকোষ

Read Next

রাগ পাহাড়ি