মুসলিম নামের সঙ্গে – ( রা. / হ. / হা / দা.বা. /মা.জি.আ. ) – ইত্যাদি শব্দ মানে কি? [ ইসলাম ও মুসলিম ]

মুসলিম নামের সঙ্গে – ( রা. / হ. / হা / দা.বা. /মা.জি.আ. ) – ইত্যাদি শব্দ মানে কি?

এগুলো কি কোন টাইটেল বা ডিগ্রি?
এগুলো কি শুধু আলেমে দ্বীনের জন্যই খাস?
যেকোনো আওয়াম জীবিত বা মৃত মুসলিমের নামের সাথে এ শব্দগুলো ব্যবহার করা যাবে কি?
প্রথম কথা হলো – এগুলো কোন ডিগ্রি, টাইটেল নয়। আলেম-ওলামা বা দ্বীনদার-বুজুর্গ ব্যক্তিদের জন্যই খাস নয়।
নামের শেষে ব্যবহার করা এ শব্দগুলো মূলত দোয়া। সকল আওয়াম মুসলিমের জন্য প্রযোজ্য।

যেমন-
র. / রহ. / রা. আ. = রাহমাতুল্লাহি আলাইহি = তার উপর আল্লাহর রহমত বর্ষিত হোক।
রাহ. = রাহমাতুল্লাহ = আল্লাহ তার প্রতি দয়া করুন।
হা. / হাফি. = হাফিজাহুল্লাহ = আল্লাহ তাআলা তাকে হেফাজত করুন।
দা.বা. = দামাত বারাকাতুহুম = তার হায়াতে বরকত দান করুন বা তার কল্যাণসমূহ স্থায়ী হোক।
মা.জি.আ. = মাদ্দা জিল্লুহুল আলিয়া = আল্লাহর ছাড়ায় সম্মানের সাথে দীর্ঘজীবী হোন।
মু. আ. = মুদ্দাযিল্লুহুল আলি = তার মহান ছায়া আমার ওপর দীর্ঘ হোক।

মনে রাখবেন – এগুলো শুধুমাত্র দোয়া। এর বেশি কিছু নয়।

তাই আপনার আত্মীয় সহ যে মৃত মুসলিমের জন্য- রাহমাতুল্লাহি আলাইহি বা রাহিমাহুল্লাহ বলতে পারবেন।
সেভাবেই জীবিত মুসলিমদের জন্যও হাফিজাহুল্লাহ, দামাত বারাকাতুহুম ইত্যাদি শব্দ ব্যবহার করতে পারবেন।
তাই বিশেষ কয়েকজনের নামে শুধুমাত্র ব্যবহার করে, অতিরিক্ত ভক্তির মাধ্যমে শিরকের পথে পা বাড়ানো রোধ করতে, নিজের আত্মীয়-স্বজন, প্রিয় মানুষ ও আওয়াম মুসলিমের নামের সাথে নিয়মিত প্রয়োগ করুন।

মহান আল্লাহ আমাদের সহজ সরল পথে পরিচালিত করুন।
আমিন।